ইন্টারন্যাশনাল একাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়ার (আইএএফএম) উদ্যোগে ও আন্তর্জাতিক কো-প্রোডাকশনের অর্থায়নে ২০২২ সালে ১৩টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মিত হবে।

আইএফএমের ফেলো চলচ্চিত্রকার অনার্য মুর্শিদের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- এ বছরের মে মাস থেকে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য একটি স্ক্রিপ্ট ল্যাবের আয়োজন করে। ল্যাবে জমা পড়া ২০টি আইডিয়া থেকে ট্রিটমেন্টের যাত্রা শুরু হয়।

ল্যাবটির প্রশিক্ষক ছিলেন ইউরোপিয়ান ফিল্ম একাডেমির সদস্য ও ইতালির প্রখ্যাত চিত্রনাট্যকার মি. জিওভানি রোবিয়ান। প্রশিক্ষণ শেষে তিনি চূড়ান্ত চিত্রনাট্য রচনার জন্য ১৩ টি ট্রিটমেন্টকে নির্বাচন করেন। বাংলাদেশ থেকে পূর্ণদৈর্ঘ্য এই কাহিনীচিত্রগুলোর চিত্রনাট্য লিখবেন-

পার্থ গুপ্ত, এন. রাশেদ চৌধুরী, তৌহিদুল আলম, তায়রান রাজ্জাক, মনির হোসেন, আমিন রবিন, মেহেদী মুস্তফা, জগন্ময় পাল, অনার্য মুর্শিদ ও সন্দীপ বিশ্বাস। ভারত থেকে লিখবেন নন্দীতা পাল, সুদীপ্ত কুন্ডু ও ভিবেক পোদ্দার।

ইন্টারন্যাশনাল একাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়ার পরিচালক বিবেশ রায় জানান, ২০ অক্টোবর ২০২১ থেকে শুরু হওয়া জিওভানির প্রত্যক্ষ প্রশিক্ষণ ও পরামর্শে স্ক্রিপ্ট ডেভলপমেন্ট কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে নির্বাচিত ১৩ টি ট্রিটমেন্ট পূর্ণাঙ্গ চিত্রনাট্যে রূপ পাবে।

স্ক্রিপ্ট ল্যাবে অংশগ্রহণকারী আইএএফএমের ফেলো চলচ্চিত্রকার অনার্য মুর্শিদ বলেন, ট্রিটমেন্ট থেকে নির্বাচিত চিত্রনাট্যসমূহ ইন্টারন্যাশনাল একাডেমি অব ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়ার উদ্যোগে ও আন্তর্জাতিক কো-প্রোডাকশনের অর্থায়নে ২০২২ সালে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে রূপ লাভ করবে।