নিজেস্ব প্রতিবেদক | চট্টগ্রাম 

চট্টগ্রামের ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে চলছে নানান রকম তালবাহানা, দীর্ঘ বছর ধরে যারা ছাত্রলীগ করে এসেছে দলে আজ তাদের কোন মুল্য নেয় নগরজুড়ে চলছে বিক্ষোভ মিছিল।

পদ বঞ্চিত নেতা কর্মীরা জানান যারা কোন দিন মিটিং মিছিলে ও দেখা যায়নি এমন কি জয় বাংলা বলতে দেখা যায়নি এবার তাদের ছাত্রলীগের কমিটিতে মুল পদে স্থান পেয়েছে,,যে কয়েকজন ত্যাগী স্থান পেয়েছে তাদের কেউ সদস্য কেউ ৪/৫ নাম্বার যুগ্ন আহ্বায়ক পদে , অনেক দীর্ঘ যাবৎ মাঠে ময়দানে ছিলো তাদের অনেকের কোথায়ও স্থান হয়নি।

এ ব্যাপারে মহানগর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর এর কাছে আমাদের প্রতিনিধি মুঠোফোনে কমিটি পাল্টা কমিটির বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন এ ব্যপারে আমার কোন হাত নেই , এবং খুব শীঘ্রই সমাধান হবে , অপর দিকে বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি থেকে শহীদুল ইসলাম বাবু ১ নাম্বার সদস্য উনার ফেসবুকে ( Shahid Islam ) পদত্যাগ করে পোষ্ট দেন ,তার সাথে যোগাযোগ করতে চেষ্টা করে সম্ভব হয়নি , এছাড়াও শহীদুল ইসলাম মানিক ফেসবুকে ( Manik Sujan )পদত্যাগ করে পোষ্ট দেন

নতুন কমিটি সম্পর্কে মহানগর ছাত্রলীগের সিঃসহ সভাপতি মিথুন মল্লিকের কাছে জানতে চায়লে তিনি জানান যারা নতুন কমিটিতে এসেছে কয়েকজন ছাড়া সভাই অপবিচিত।
নতুন কমিটির আহবায়ক কাজী নাঈম এর বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর ব্যনার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ ও রয়েছে।

সুত্রে জানা যায় ১৬ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগে যিনি সভাপতির পদ পেয়েছেন তিনি বিবাহিত।
একজন বিবাহিত ব্যক্তি ছাত্রলীগে কিভাবে থাকে তিন তো যুবলীগে থাকার কথা। চকবাজার থানা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক জিএম কাদের তাওসিফ তার বড় ভাই হেলাল কাদের তিনি একজন প্রভাসী ২০১৯/২০২০ সাল পর্যন্ত ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর অর্থ সম্পাদক এর দায়ীত্বে ছিলেন প্রশ্ন জাগে বিদেশে থেকে ও তিনি কিভাবে রজনীতি চালিয়েছেন এবং বিদেশের টাকা কি এই পদবী ? জিএম কাদের তাওসিফ ওয়ার্ড তো দুরের কথা ইউনিট ছাত্রলীগের কোন মিটিং মিছিলে ও দেখা যায়নি।

১৭ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজ কাদের তার বাবা মরহুম হাজী শফি ছিলেন বাকলিয়া থানা আওয়ামীলীগ এর থানা কমিটির আহবায়ক ও ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর সাবেক সভাপতি। রিয়াজ কাদের মিটিং মিছিল তো দুরের কথা ঐ এলাকায় অনেকেই তাকে চিনে বলে মনে হয়না সাধারন নেতা কর্মীদের মনে এক রহস্যের বাসা বেধেছে এই কমিটি নিয়ে কারা খেলছে কাদের ইশারায় নড়ছে কলকাঠি যারা ছাত্রলীগের জন্য সারাটা জীবন উৎসর্গ করেছে। তারা কেন আজ অবহেলিত। আর যারা রাজনীতির “র” বুঝেনা তারা আজ ছাত্রলীগের বড় বড় নেতে সেজে বসেছে। সবার মনে একটাই প্রশ্ন রাজনীতি কে বাণিজ্যিক পন্য হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ? এবং সুঃসময়ের পদবী কি দুঃসময়ে সর্ব কনিষ্ঠ কর্মীর সাথে তুলনা করা যায় , তাদের অনুরোধ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে তৈরি এই ছাত্র সংগঠনটি যেন কারো ব্যাসার পণ্য হিসেবে ব্যাবহৃত নাহয় ,