মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে দল হিসেবে জামায়াতে ইসলামীর বিচার করতে আইন সংশোধনের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেছেন, জামায়াতের বিচারে সরকারের আন্তরিকতার কোনো অভাব নেই।

শনিবার রাজধানীর বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে সিনিয়র সহকারী জজ এবং সমপর্যায়ের বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন আইনমন্ত্রী।

জামায়াতে ইসলামীর বিচারের ব্যাপারে সরকারের আন্তরিকতার অভাব আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আপনাদের এটা মনে হওয়াটাও তো আমাদের জন্য দুঃখের।

কারণ এই সরকারই মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার করেছে। তারা কিন্তু জামায়াতের হোতা ছিল, প্রতিষ্ঠাতা ছিল। সেই ক্ষেত্রে আপনারা যদি মনে করেন আমরা উদ্যোগী নই, তাহলে সেটি আমাদের জন্য দুঃখজনক।

তাহলে বিচার ঝুলে আছে কেন? জবাবে আনিসুল হক বলেন, রাজনৈতিক দল হিসেবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে জামায়াতের বিচারের জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল অ্যাক্ট যথেষ্ট নয়।

এই আইনটি সংশোধন করা দরকার এবং সেই প্রক্রিয়া চলছে। আমি এতটুকুই বলব। আর কিছুদিন অপেক্ষা করুন। সংবিধানের সঙ্গে জামায়াতে ইসলামীর গঠনতন্ত্র সাংঘর্ষিক হওয়ায় হাইকোর্টে দলের নিবন্ধন বাতিলের পর আপিল বিভাগের থাকা মামলাটি নিষ্পত্তির বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ওই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করব না। কারণ এটি বিচারাধীন বিষয়।
জাতীয়রাজনীতিআওয়ামী লীগজামায়াতে ইসলামী