প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি ধংসাত্মক কাজ করে। তাদের অগ্নি সন্ত্রাস, গাছ কাটা, যেভাবে তারা পুলিশের উপর আক্রমণ করেছে, তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। কত মানুষকে যে হত্যা করেছে হিসাব নাই। তখন পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়েও নিরাপত্তা নিয়ে এসেছে।’

পূর্বসুরিদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতাকে সর্বশক্তি দিয়ে রক্ষা করতে পুলিশ সদস্যদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পুলিশ সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রোববার সকালে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় সরকারপ্রধান বলেন, ‘পূর্বসুরিদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতাকে সর্বশক্তি দিয়ে রক্ষা করতে হবে। আমার বিশ্বাস, জনবান্ধব পুলিশিংয়ের মাধ্যমে অভ্যন্তরীণ শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার পাশাপাশি গণতন্ত্র রক্ষায় পুলিশ বাহিনীর প্রতিটি সদস্য নিজেদের দায়িত্ব পালন করবে।’

বিভিন্ন দুর্যোগের সময় পুলিশের সেবামূলক কার্যক্রমের প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘করোনার সময় পুলিশ মানুষের ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়েছে। যখন মানুষ আত্মীয় স্বজনের লাশ ফেলে গেছে, তখন পুলিশ তাদের দাফন করেছেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি ধংসাত্মক কাজ করে। তাদের অগ্নি সন্ত্রাস, গাছ কাটা, যেভাবে তারা পুলিশের উপর আক্রমণ করেছে, তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। কত মানুষকে যে হত্যা করেছে হিসাব নাই। তখন পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়েও নিরাপত্তা নিয়ে এসেছে।’

পুলিশ বাহিনীর উন্নয়নে সরকারের নেয়া পদক্ষেপ তুলে ধরেন সরকার প্রধান। তিনি বলেন, ‘সরকারে আসা পর দেখি পুলিশের বাজেট মাত্র চার শ কোটি টাকা। আমরা এটাকে আট শ কোটি টাকা করে দিলাম। ট্রাস্ট ফান্ড করে ৫ কোটি সিড মানি করি। স্টাফ কলেজ করেছি ট্রেনিংয়ের জন্য। পুলিশের ঝুঁকিভাতা আমরা প্রবর্তণ করি।’

পুলিশের জন্য দুটি হেলিকপ্টার কেনার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।