হৃদয় শীল, মধুখালী(ফরিদপুর)প্রতিনিধি:-ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার ডুমাইন ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামে অবস্থিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। প্রাথমিক শিক্ষার বিকাশে সরকার নানা উদ্যোগ নিলেও এ বিদ্যালয়ে লাগেনি উন্নয়নের ছোঁয়া। অন্যান্য শ্রেণিকক্ষে জায়গা না হওয়ায় বিদ্যালয়ের একটি  টিনশেডের ঘরে ক্লাস করতে হয় শিক্ষার্থীদের। জানা যায়, ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার ডুমাইন ইউনিয়নে ১৯৬৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টি। এর বর্তমান শিক্ষার্থী ১৬৭ জন। আর এখানে শিক্ষক রয়েছেন চারজন। সরেজমিনে এ বিদ্যালয়ে গিয়ে জানা যায়, ২০০০-২০০১ সালে বিদ্যালয়ের একতলা একটি ছোট ভবন নির্মাণ করা হয়। সেখানে মাত্র  একটি টিনের ঘর ও একটি ঝুকিপূর্ণ ভবনে  চলে পাঠদান। আর ছোট ভবনটি পরিত্যক্ত।  বর্তমান ঝুকিপূর্ণ ভবনে  দুটি কক্ষে ক্লাস নেয়া হচ্ছে এবং একই ভবনে রয়েছে অফিস। দুই ভবনের মাঝখানে রয়েছে ছোট একটি পুরানো ও জরাজীর্ণ টিনের ঘর। এতে রয়েছে দুটি কক্ষ। এর চালার টিন ছিদ্র হয়ে গেছে। বারান্দার টিন, কাঠ ও দরজা-জানালা মোটামুটি ভাল এই টিনের ঘরে নেয়া হচ্ছে ক্লাস কিন্তু শিক্ষার্থীদের বে  এর অভাব। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কালীপদ ভাদুরী জানান, ‘আমি ২০১০ সালে এ বিদ্যালয়ে  যোগদান করি। বর্তমান ঝড়-বৃস্টির দিন ছাত্র-ছাত্রীর কথা চিন্তা করে ভবন ও ঘরটি ভেঙে একটি বিল্ডিং নির্মাণ করা অতিব জরুরী। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ শরিফুল ইসলাম  জানান, ভবনটি ভেঙে নতুন ভবন তৈরি না করলে যে কোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বিদ্যালয়ে সভাপতি মোঃ আঃ রশিদ মোল্যা বলেন এই পুরাতন ভবন ভেঙ্গে নতুন করে ভবন করা একান্ত প্রয়োজন। এ ব্যপারে মধুখালী উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার নাসিমা আক্তার বলেন, মধুখালী উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে অবগত করে নতুন ভবনের জন্য সরকারের নিকট আবেদন দেওয়া আছে আশা করা যায় অচিরেই ভবন হয়ে যাবে। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ সিরাজুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান  আমি নতুন যোগদান করেছি । আমার কাছে কোন তথ্য নাই । খোজ  নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবো।