ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির সমাবেশে সবার দৃষ্টি কাড়ে শতবর্ষী বৃদ্ধ কেসমত আলী। হাতে একটি পুটিলি। গায়ে ময়লা জাপা কাপড়। গায়ের চামড়া কুঁকড়ে গেছে। মুখে একটি দাঁতও অবশিষ্ট নেই। তাই কথাগুলো শুনতে অস্পষ্ট।

নিজে লাঠি ভর দিয়ে কোন রকম চলাফেরা করতে পারেন। তিনি জানালেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে তিনি প্রচন্ড ভালোবাসেন। লোক মারফত কেসমত আলী জানতে পারেন ২৯ ডিসেম্বর বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে সুচিকৎসার দাবীতে ঝিনাইদহ শহরের উজির আলী মাঠে জেলা বিএনপি সমাবেশ ডেকেছে। তিনি আর বাড়িতে থাকতে পারেননি। তাই লাঠি ভর দিয়ে সমাবেশে হাজির হন।

কেসমত আলী ঝিনাইদহ শহরতলী এলাকার গোয়ালবাড়ি কাষ্টসাগরা গ্রামের মৃত আব্দুল শেখের ছেলে। তিনি নিজেই জানান তার বয়স এক’শ বছর। গনমাধ্যম কর্মীদের বসার স্থানে তিনি লাঠি ভর দিয়ে বসে ছিলেন।

মাথায় “খালেদা জিয়া মুক্তি আন্দোলন” লেখা কাপড় বাধা। সমাবেশ স্থল থেকে মাঝে মধ্যে শ্লোগান ভেসে আসলে তিনিও উত্তর দিতে থাকেন। সাংবাদিকরা তাকে জিজ্ঞাসা করেন, এই বৃদ্ধ বয়সে এমন শরীর নিয়ে কেন এখানে এসেছেন। কানের কাছে মুখ নিয়ে কেসমত আলী বলে ওঠেন, “আমি কড়া বিএনপি, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য এসেছি”। সমাবেশ শেষে ছাত্রদল ও বিএনপি নেতারা বৃদ্ধ কেসমত আলীকে বাড়ির উদ্দেশ্যে একটি গাড়িতে উঠিয়ে দেন।