শেখ নাসির উদ্দিন, খুলনা প্রতিনিধি: খুলনা মহানগরীতে জাকির হোসেন কালু নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) বেলা ১১ টার দিকে পূর্ব মোহাম্মদনগর হুসাইন মসজিদের পাশের একটি ক্ষেত থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত জাকির ওই এলাকার মৃত শুকুর আলীর ছেলে। লাশ উদ্ধারের ঘটনায় এলাকায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার বাসিন্দারা জানান, জাকির পেশায় একজন ইজিবাইক চালক। গত আট বছর পূর্বে নগরীর গল্লামারী লায়ন্স স্কুল এলাকার তানিয়া নামের একটি মেয়ের সাথে তার বিয়ে হয়। কিন্তু সে বিয়ে বেশীদিন স্থায়ী হয়নি। পরে তানিয়াকে তালাক দেয় সে। পরবর্তীতে তানিয়া লবনচরা থানায় জাকিরের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর প্রায়ই জাকিরকে ওই নারী হয়রানিসহ ভয়ভীতি প্রদর্শন করত। বুধবার রাতে কয়েকজন ব্যক্তি ও তানিয়াকে ওই এলাকায় দেখতে পাওয়া যায়।

রাত সাড়ে নয়টার দিকে জিরো পয়েন্ট এলাকার সোহাগসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজন পুলিশের পরিচয় দিয়ে বাড়িতে প্রবেশ করে জাকিরকে ধরার জন্য। পালানোর চেষ্ট করেও ব্যর্থ হয় সে। মোটরসাইকেলে করে তাকে তুলে নেওয়া হয়। পরিবারে সদস্যরা তাকে খোঁজ করার জন্য বের হয়েও ব্যর্থ হয়। পরবর্তীতে সকাল ১১ টার দিকে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মসজিদের মোয়াজ্জেনের স্ত্রী তার লাশ দেখতে পেয়ে পরিবারকে খবর দেয়। পরিবারের সদস্যরা পুলিশকে খবর দিলে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সন্ধ্যায় পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। পরে লাশ দাফনের উদ্দেশ্যে গ্রামের বাড়ি নড়াইলে নিয়ে যাওয়া হয়।

লবনচরা থানার অফিসার ইনচার্জ সমীর কুমার সরকার জানান, রাতে ৭ থেকে ৮ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি জাকিরের বাড়িতে প্রবেশ করে। এরপর তাকে আর খুঁজে পায়নি পরিবারের সদস্যরা। পরবর্তীতে সকালে থানায় খবর আসে জাকিরের বাড়ির পাশের একটি ক্ষেতে তার লাশ পড়ে রয়েছে। নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রী রেক্সোনা বেগম বাদী হয়ে থানায় এজহার দায়ের করেছেন। তবে তদন্ত না করে কিছু বলা সম্ভব হচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন তিনি।