ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার বড়হিত ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের কমল ফকিরের বাড়ি হতে মরহুম কদ্দুস মাষ্টারের বাড়ি হয়ে লিটনের দোকান পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার কাঁচা রাস্তাটি সংস্কারের অভাবে বেহাল দশা। সামান্য বৃষ্টি হলে রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে দুর্ভোগ পোহাতে হয় স্থানীয়দের। পুরো রাস্তাই খানাখন্দে ভরা।

এতে করে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দাসহ আশেপাশের কয়েটি গ্রামের মানুষ। বেশ কয়েক বছর ধরে রাস্তাটি যানবাহন ও পথচারীদে চলাচলে অনুপযোগী হওয়ায় অতিতিক্ত ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে।

জানা যায়, নওপাড়াসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের কয়েকশ ছাত্রছাত্রী এ রাস্তা দিয়ে স্কুলে প্রতিদিন যাতায়াত করে। ফলে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টি হওয়ায় রাস্তাটির মাটি উঠে গিয়ে কাঁদা ও খানাখন্দের সৃষ্টি হয়। এতে পথচারীসহ শিক্ষার্থীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে।

রাস্তাটি ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার বড়হিত ইউনিয়নের গ্রামের মানুষের উপজেলা ও শহরের সঙ্গে সংযোগের এবং চলাচলের একমাত্র সড়ক। এর ফলে গ্রামে উৎপাদিত পণ্য বাজারে নেয়ায় চরম ভোগান্তিতে পরতে হচ্ছে কৃষকদের।

জনসাধারণের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে খুব দ্রুত রাস্তাটি মেরামত করার প্রয়োজন। বড়হিত ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন রাস্তা সংস্কার না হওয়ার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করে বলেন কয়েক বছর আগে আমিই এই রাস্তায় মাটি কেটেছি।

কিন্তু কত বছর আগে এবং কোন প্রকল্পের আওতায় মাটি কাটানো হয় প্রশ্ন করলে তার কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজা জেসমিন বলেন, এলাকার এতো এতো রাস্তা সব রাস্তাই তো সংস্কার করা সম্ভব না। জন দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে হলেও সামনে বরাদ্ধ পেলে কাজ করার চেষ্টা করবো।