হাফিজুর রহমান তালতলী ,বরগুনা(প্রতিনিধি) তিনি তালতলী উপজেলা ইসলামী আন্দোলনের সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক শ্রমিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন . এলাকার একজন জনপ্রিয় কৃষক হিসাবেই পরিচিত . তিনি ১০ বছর আগে ব্যাবসা করতেন ব্যাবসা ছেরে নিজের এলাকায় নিজের জমিতে শনাতন পদ্ধতিতে কৃষি কাজ শুরু করেন কৃষিতে লাভবান হওয়ায় এলাকায় দল গঠন করে মানুষকে কৃষি কাজে উদবাদ্দো করেন. এই এলাকায় এখন শত শত হেক্টর জমিতে সবজীর ফলন হয় এলাকায় তার সফলতাকে পুজি করে অনেক বেকার যুবক কৃষি কাজ করে অনেক লাবভান হয়েছেন।

এলাকার মানুষ তার এই কর্মকে শাধুবাদ জানায়। তার এই কৃষি কাজের সফলতাকে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন তালতলী উপজেলা কৃষি অফিস ও বরগুনা জেলার কৃষি অফিস পুরস্কার ও সম্মাননা প্রধান করেন তিনি কৃষি কাজের পাসাপাসি একটি মসজিদের ইমামতীও করেন আর ইসলামী আন্দোলনের একজন সামনের সারিন নেতা।তিনি তালতলী উপজেলা ইসলামী আন্দোলনের সকল নেতা ক্রমিকে ঐক্যের পথে রাখার জন্য একজন সৎ নেতা হিসাবে ইসলামী আন্দোলন সকল মুজাহিদ তাকে হাতপাখা মার্কায় নির্বাচন করতে উৎসাহিত করেন। কারন কথায় আছে যে রাধে সে চুলও বাঁধতে পারে।

৫ নং ইউনিয়নের এলাকাবাসীরা জানান, তাদের প্রত্যাশা ও অনুভূতি অনেক সময় এখন তারুণ্যের মোঃ শাহাদাত হোসাইন মাতুব্বর চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন। একজন তরুণ প্রজন্মের মধ্যে সৎ, ন্যায়-পরায়ন ও ধার্মিক যুবক সমাজের সেবক বিপদে, দূঃসময়ে আমরা তার নিকট থেকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগীতা পেয়েছি।

জনসেবা ও সততার কারণে সাধারণ মানুষের কাছে তিনি অত্যন্ত আস্থাভাজন ব্যক্তি হিসেবে অল্প সময়ে সু-পরিচিতি লাভ করেছেন এবং একজন উদীয়মান যুবক রাজনীতিবিদ হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে তিনি নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন সাধারণ মানুষের সেবায়। সাধ্য অনুযায়ী সাহায্য করেছেন সাধারণ মানুষের। নির্বাচনে ৫নং বড়বগী ইউনিয়নের উন্নয়নের রুপকার হিসেবে তাকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চাই।

নির্বাচন নিয়ে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ শাহাদাত হোসাইন মাতুব্বর বলেন, আমি নিজেকে একজন চাষীর গড়ের সন্তান হিসাবে মানুষের কাছে সারাজীবন পরিচিত হইছি. আমার বাবা মৃত্যু আনোয়ার হোসাইন মাতুব্বর সারা জীবন অত্র এলাকার মানুষের বিপদে পাশে ছিল সদ ভাবে জীবন জাপান করছে. কিছুদিন আগে তিনি মারা যান গেলো অগ্রহানের মাহফিলে চরমোনাই পীর হজরত মুফতী রেজাউল করীম আমাকে নির্বাচনের প্রার্থীতা ঘোষণা করেন, এর আগে তালতলী ইসলামী আন্দলনের নেতৃত্বে প্রার্থী বাছাইতে মুজাহিদদের পছন্দের কথা বিবেচনায় আমাকে চুরান্তো প্রার্থী করা হয়।

আমি আমার ইউনিয়ানে হাতপাখা মার্কা নিয়ে পীর সাহেব চরমোনাই হুজুরের দোয়ে জনগণের ভালবাসা নিয়ে মাঠে নামছি ইনশাআল্লাহ বড়বগী ইউনিয়নের জনগণ যদি সঠিকভাবে ভোট দিতে পারে আমি হাতপাখা মার্কা নিয়ে বিপুল ভাবে জয়ই হবো.আমি ৫নং বড়বগী ইউনিয়নের মানুষের সেবা করার প্রতিজ্ঞা নিয়ে নির্বাচনে নেমেছি। আমার এই ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন গড়া আমার লক্ষ্য। আমি আশাবাদী এবং আমার এলাকার ভোটারদের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাসী যে, সকলেই আমাকে ভোট দিয়ে এলাকার উন্নয়ন মূলক কাজ করার সুযোগ করে দিবে। নির্বাচনে জয়যুক্ত হওয়ার জন্য আমি সবার দোয়া প্রত্যাশী। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের মাঝে চলছে যোর প্রচারণা। তারিই ধারাবাহিকতায় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দেন তারুণ্যের উদ্যমে উদ্দীপ্ত মোঃ শাহাদাত হোসাইন তিনি তালতলী উপজেলা ০৫নং বড়বগী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। মোঃ শাহাদাত হোসাইন একজন ব্যবসায়ী ও একজন সচেতন কৃষক তালতলী উপজেলার ইসলামী আন্দোলনের সভাপতি মাওলানা আবজাল হোসাইন ও সাধারন সম্পাধক জহিরুল ইসলাম বলেন আমাদের কেন্দ্রীয় ঘোষণা অনুযায়ী এই উপজেলার ৭ ইউনিয়নে আমরা ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী দিয়েছি হাতপাখা মার্কা নিয়ে তারা নির্বাচন করবে ইনশাআল্লাহ আমরা কামিয়াব হবো বড়বগী ইউনিয়নে আমাদের একক ভোট রয়েছে যদি সুষ্ঠ পরিবেশে মানুষ ভোট দিতে পারে ইনশাআল্লাহ হাতপাখা মার্কা নিয়ে মোঃ শাহাদাত হোসাইন মাতুব্বর জয়ই হবেন