এক লাখ ৬১ হাজার মেট্রিক টন চাল ও গম নিয়ে সাতটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছেছে। এর মধ্যে ৫টি জাহাজে ৬১ হাজার ৫০ দশমিক ৯০০ মেট্রিক টন চাল রয়েছে। বাকি দুটি জাহাজে গম রয়েছে ১ লাখ ৫৭৫ মেট্রিক টন।

এসব জাহাজের মধ্যে তিনটিতে এখন খালাস শুরু হয়েছে। আর চারটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে অবস্থান করছে। গম আমদানি করা হয়েছে রাশিয়া থেকে। চাল আমদানি হয়েছে ভিয়েতনাম ও মিয়ানমার থেকে। চট্টগ্রাম খাদ্য বিভাগের অফিস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত মাসের শেষদিকে দেশের চাল ও গমের বাজার স্থিতিশীল রাখতে আরো ছয়টি জাহাজে ১ লাখ ৮৭ হাজার মেট্রিক খাদ্যশস্য আমদানি করা হয়। অন্যদিকে এত বিপুল পরিমাণ চাল ও গম আমদানির উদ্যোগের পরও বাজারে এর কোনো প্রভাব নেই।

গম ও চালের বাজার এখনো অস্থির। দাম এক দফা কমে তো দুই দফা বাড়ে। এভাবেই দীর্ঘদিন বাজার অস্থিরতায় রয়েছে। সপ্তাহ খানেক আগেও সামান্য কমেছিল চালের দাম। তবে কয়েকদিন ধরে আবার চালের বাজার ঊর্ধ্বমুখী। নতুন করে সব ধরনের চালের দাম বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

চট্টগ্রাম খাদ্য বিভাগের অফিস সূত্রে জানা যায়, দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে এবং চাল ও গমের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সরকার চাল ও গম আমদানি করছে। চলতি মাসে আরো কয়েকটি জাহাজ চাল ও গম নিয়ে আসার কথা রয়েছে।

গত মাসের শেষদিকে দেশের চাল ও গমের বাজার স্থিতিশীল রাখতে ছয়টি জাহাজে ১ লাখ ৮৭ হাজার মেট্রিক খাদ্যশস্য আমদানি করা হয়। ছয়টি জাহাজের মধ্যে দুটি জাহাজে গম ছিল ১ লাখ ৭ হাজার ৮৪৫ টন। আর চারটি জাহাজে আতপ ও সিদ্ধ চাল ছিল ৭৯ হাজার ৫৭৩ দশমিক ৪০০ টন। গম আমদানি করা হয়েছে রাশিয়া থেকে। চাল আমদানি হয়েছে ভারত, ভিয়েতনাম ও মিয়ানমার থেকে।