জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্যের গুরুত্ব বিবেচনা করে আগামী ৩ জানুয়ারি “জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কাউন্সেলিং সেন্টার” এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ এবং কাউন্সেলিং কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. নূর মোহাম্মদ। আগামী ৩ জানুয়ারি, দুপুর ১২ টায় র‍্যালির মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে যথাসময়ে র‍্যালি তে অংশগ্রহণ করে কাউন্সেলিং সেন্টার এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান কে সাফল্যমন্ডিত করার জন্য সকলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে কাউন্সেলিং সেন্টারের সদস্যবৃন্দ।

এ ব্যাপারে মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ও কাউন্সিলিং সেণ্টারের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. নূর মোহাম্মদ জানান, শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য হচ্ছে কাউন্সেলিং সেন্টার। এই সেন্টার চালু হওয়ার পিছনে মনোবিজ্ঞান বিভাগ ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সকলের সমান অবদান রয়েছে যার ফলে আমরা এতদূর আসতে পেরেছি এইজন্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অশেষ ধন্যবাদ। অত্যন্ত সুশৃংখলভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত কাউন্সিলররাই শিক্ষার্থীদের সেবা দিয়ে থাকবেন সেখানে তাদের সহযোগিতা করার জন্য মনোবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্স এ অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা ইন্টার্নশিপ এর অংশ হিসেবে সর্বদা সহযোগিতা করবেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মনোবিজ্ঞান বিভাগ এর ১১ ব্যাচের শিক্ষার্থী এবং বাংলাদেশের প্রথম গ্রফোলজিস্ট মোঃ মিরাজ হোসেন বলেন, ” গত ২ বছর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাউন্সেলিং প্রাক্টিস করার সময় দেখেছি জবি এর অনেক ছাত্রছাত্রীকে কাউন্সেলিং সেবা নিতে চেয়েছিলেন কিন্তু ফি অনেক বেশি হওয়ায় সেই প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে সেবা নিতে পারে নাই। আমাদের ক্যাম্পাস এ যখন ফ্রী তে কাউন্সেলিং সেবা পাবে তখন ছাত্রদের নিজেদের শারিরীক স্বাস্থ্য সাথে মানসিক স্বাস্থ্য প্রতি নজরও দিতে পারবে। আমার দৃঢ় বিশ্বাস , যদি আমাদের ভাই বোনেরা নিয়মিত কাউন্সেলিং সেবা নেন, তাহলে কাউকে আর হারাবো না আত্মহত্যার কারণে।