সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা আগামী বছরের জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, চলতি মাসে প্রাথমিকের ৩২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও সেটি হচ্ছে না।

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা চলমান থাকায় ডিসেম্বরে পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব হবে না। তাই এইচএসসি পরীক্ষা শেষে জানুয়ারি মাসে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা নেওয়া হবে।

অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা আয়োজনের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে কাজ করআর নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা নিতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন আমরা শুধু প্রবেশপত্রগুলো দেবো আর পরীক্ষা নেবো।

গত বছর অক্টোবরের শেষ দিকে ৩২ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার আবেদন শুরু হয়। আবেদনগ্রহণ শেষ হয় ২৪ নভেম্বর রাতে। এতে আবেদন করেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ জন। ফলে প্রতি আসনের বিপরীতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেবেন ৪০ জন। মোট ৩২ হাজার ৭৭টি শূন্য পদে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। এর মধ্যে প্রাক-প্রাথমিক পর্যায়ে ২৫ হাজার ৬৩০ জন এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শূন্যপদে ৬ হাজার ৯৪৭ জনকে নিয়ােগ দেওয়া হবে।