হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের করা এক সমীক্ষায় বলা হচ্ছে হোটেলের দুটি পৃথক ঘরে থাকা সত্ত্বেও ওমিক্রন সংক্রমিত হয়েছেন দুই ব্যক্তি।

ভ্যাকসিন নেয়ার পরও কোয়ারেন্টাইন হোটেলে ওমিক্রন আক্রান্ত হয়েছেন ওই দুই ব্যক্তি। সমীক্ষা অনুযায়ী, এক রোগী ১৩ নভেম্বর ওমিক্রন পজিটিভ হন। কিন্তু কোনও উপসর্গ ছিল না।

অন্য একজনের মধ্য়ে মৃদু উপসর্গ দেখা যায় ১৭ নভেম্বর। পরীক্ষা করে তার ওমিক্রন ধরা পড়ে। কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ক্লোজ সার্কিট টিভিতে দেখা গিয়েছে আক্রান্ত দুই ব্যক্তিই নিজেদের রুম থেকে বের হননি।

ফলে কারও সংস্পর্শে আসার কোনও সম্ভাবনা নেই। ফলে আশঙ্কা করা হচ্ছে তাহলে কি বাতাসেই ছড়িয়েছে ওমিক্রন ভাইরাস? এমনও হতে পারে করোনা টেস্টের জন্য যখন রুমের দরজা খোলা হতো বা খাবার দেওয়া হতো তখন সংক্রমণ ছড়াতে পারে।

কোয়ারেন্টাই সেন্টারে বাতাসে সংক্রমণ ছড়ানো ছাড়া আর কোনওভাবে তা হতে পারে না। এমনটাই মনে করা হচ্ছে সমীক্ষায়।