শারীরিক-মানসিক সম্পর্ক থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য সব কিছুই বদলে দিচ্ছে জীবনধারা। কোনও কোনও ক্ষেত্রে জান্তেই চরম প্রভাব পড়ছে কিছু কিছু অভ্যাসে।জীবনে দিন দিন বাড়ছে লাইফস্টাইল সমস্যা।

জীবনধারণের নানা নতুন গতিপ্রকৃতিই জীবনে বাড়িয়ে তুলছে সমস্যা। সাম্প্রতিক সমীক্ষা ও বিভিন্ন গবেষণা বলছে, পুরুষের শারীরিক ক্ষমতা অনেকটা কমছে মোবাইল ব্যবহারের জন্য। এক্ষেত্রে মোবাইল ব্যবহার বেশি হলে তার থেকে এমন কিছু হতে পারে যা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না। তাই বারবার বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন যে মোবাইল, ল্যাপটপ থেকে দূরে থাকার কথা।

রাতে নিয়মিত মোবাইল, ল্যাপটপ ব্যবহারের সঙ্গে পুরুষের বন্ধ্যাত্বের সম্পর্ক রয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে গবেষণায়। বস্তুত, মোবাইল এখন আমাদের সর্বক্ষণের সঙ্গী। প্রতিটি মানুষই ব্যবহার করছেন মোবাইল। বলা হচ্ছে মোবাইল ব্যবহার সারাদিন করলে তাও চলতে পারে। তবে রাতে মোবাইল ব্যবহার করলে অনেক সমস্যা বাড়ছে জীবনে।

এক্ষেত্রে ফার্টিলিটি বহুলাংশে কমতে পারে। সম্প্রতি একটি গবেষণা প্রকাশ পেয়েছে আমেরিকার ভার্চুয়াল স্লিপ ম্যাগাজিনে। এক্ষেত্রে ১১৬ জন পুরুষের স্পার্ম নেওয়া হয়। এদের বয়স ছিল ২১ থেকে ৫৯ বছরের মধ্যে। তাদের কাছ থেকে ঘুমের সময় ও মোবাইল, ল্যাপটপ ব্যবহারের সময় জিজ্ঞেস করা হয়।

এই গবেষণার পর গবেষকরা জানান, মোবাইল, কম্পিউটার থেকে বেরিয়ে আসে নীল আলো। আর এই আলো বড় সমস্যা তৈরি করে দেয় জীবনে। এক্ষেত্রে রাতের বেলা এই আলো চোখে প্রবেশ করলে অনেক জটিলতা তৈরি হয়ে যায়।

এছাড়া মোবাইল বা ল্যাপটপের একটা রেডিয়েশনও রয়েছে। এর থেকেও সমস্যা তৈরি হয়। ফলে রাতের দিকে মোবাইল ব্যবহার যতটা সম্ভব কমিয়ে দেওয়াই কাম্য বলে মনে করছেন গবেষকরা।

গবেষণায় বলা হয় যে, নীল আলোর ওয়েভলেনথ কিন্তু শরীরের ভিতর সমস্যা তৈরি করে দেয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় যে ঘুমের ১২টা বাজায় এই নীল আলো। তবে এর পাশাপাশি স্পার্মের মানও খারাপ হয়।

তাই শারীরিক সুস্থ্যতা বাঁচাতে চাইলে পুরুষরা অবশ্যই রাতে মোবাইল, ল্যাপটপ ব্যবহার ছাড়ুন। নইলে অচিরেই চরম সমস্যার মুখোমুখি হতে হতে পারে আপনাকে।

সূত্র: নিউজ এইটিন