পাইকগাছায় দশম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী (১৬) কে অপহরণের কাজে সহায়তা করার অভিযোগে স্বামী স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার রাতে পাইকগাছা ও যশোরের বাঘারপাড়া থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে বাঘারপাড়ার রায়পুর ইউনিয়নের শালবরাট এলাকা থেকে তাদের আটক করে।

আটককৃতরা যশোরের বাঘারপাড়ার রায়পুর ইউনিয়নের শালবরাট গ্রামের মৃত রামপদ দেবনাথের ছেলে পরিতোষ দেবনাথ ও তার স্ত্রী নমিতা দেবনাথ। তারা দু’জন অপহরণের দায়ে অভিযুক্ত সুব্রত দেবনাথের বাবা মা।

গত ৫ নভেম্বর শুক্রবার পাইকগাছা পৌর এলাকা থেকে ওই স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করা হয় বলে অভিযোগে পাওয়া যায়। ০৯ নভেম্বর মঙ্গলবার ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে পাইকগাছা থানায় মামলা করে।

অপহৃত স্কুল ছাত্রী পাইকগাছার মঠবাটি গ্রামের বাসিন্দা ও ভোলানাথ সুখদা সুন্দরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। মামলা সুত্রে জানাযায়, স্কুল ছাত্রী শুক্রবার সকাল ৮ টার দিকে প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে বের হলে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পরে পাইকগাছার বোয়ালিয়া মোড় থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা প্রাইভেট কারে জোর করে তুলে নিয়ে যায় এমন খবর পাওয়া যায়। এঘটনার জের ধরে পাইকগাছা থানায় সাধারণ ডায়েরি করে মেয়ের পিতা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) শাহাদাৎ মোল্লা জানিয়েছেন, অপহরণের কাজে সহায়তা করার অভিযোগে রোববার রাতে বাঘারপাড়া থেকে পরিতোষ দেবনাথ ও নমিতা দেবনাথ নামে দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। সোমবার তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত সুব্রত দেবনাথসহ অন্য আসামীদের আটকের চেষ্টা চলছে।