কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের পহরচাঁদা হাফালিয়া কাটা মোরার পাড়ায় নুর আয়েশা পটু (২৩) নামের এক নারীকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

ওই নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর ১৭ মার্চ দুপুরে চকরিয়া থানার পুলিশ দোষীদের গ্রেফতার করতে অভিযানে নেমেছে।

এলাকাবাসী জানান, ওই এলাকার জহির আহমদের ছেলে শওকত আলম এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এ ঘটনাটি মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে ঘটলেও নির্যাতনের ভিডিওটি বুধবার দুপুরের দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখা যায়।

চকরিয়া থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবাইয়ের জানান, এ ঘটনায় কেউ থানায় কোনো অভিযোগ দেয়নি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নির্যাতনের ভিডিও দেখে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযান চালিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নির্যাতিত ওই নারীকে থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করতেও বলা হয়েছে।

বরইতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার জানান, বরইতলী ইউনিয়নের পহরচাঁদা হাফালিয়া কাটা মোরার পাড়ার আলী হোসেনের স্ত্রী নুর আয়েশা পটু একই এলাকার জহির আহমদের ছেলে শওকত আলমের কাছ থেকে সুদে ৪ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছিলেন। নির্দিষ্ট সময়ে নুর আয়েশা পটু চার হাজার টাকার মধ্যে সুদে আসলে আট হাজার টাকা পরিশোধ করেন। এরপর আরও ২ হাজার টাকা আদায়ের জন্য ওই নারীকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।