রাজশাহীর বাগমারায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (আ’লীগ বিদ্রোহী) সিরাজুল ইসলামের নির্বাচনী জনসভায় হামলা চালায় নৌকার মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হামিদের বড় ছেলে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান দুলাল। ওই হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলামসহ ২০জন আহত হয়েছে।

এই সংবাদ লেখা পর্যন্ত হামলাকারীরা সেখানে তান্ডব চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে বাগমারা থানা ও ঝিকরা ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে যাচ্ছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার দ্বীপপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলামের বিভিন্ন ওয়ার্ডের সমর্থকেরা ইউনিয়নের মিরপুর মাঠে নির্বাচনী জনসভার আয়োজন করেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম তার সমর্থিত লোকজন নিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে জনসভায় উপস্থিত হন। জনসভা চলাকালীন সময়ে বর্তমান নৌকার সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হামিদের ছেলে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান দুলালসহ তার বাহিনী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। নেতাকর্মীরা দিক বিদিক ছুটাছুটি শুরু করে। তাদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলামসহ ২০জন সমর্থক আহত হয়।

আহত স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম অভিযোগ করেন, শান্তিপূর্ণ জনসভায় ইউপি চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান দুলাল তার বাহিনী নিয়ে হামলা চালিয়ে ২০জন নেতাকর্মীদের রক্তাক্ত জখম করেছেন। তিনি এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবী করেছেন।

এ ব্যাপারে বাগমারা থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন।