মোঃ এনামুল হক লোহাগড়া স্টাফ রিপোর্টার: রুর্যাল জার্নালিষ্ট ফাউন্ডেশন(আরজেএফ) নড়াইল জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মোঃ সাজ্জাদ আলম খাঁন সজল ভাইয়ের তথ্যচিত্র ইসধর্মের বিশেষ একটি গুরুত্বপূর্ণ দিনকে স্মরন করে তথ্যটি প্রকাশ করেছেন। ৬১হিজরী সনের ১০ই মহররম ইরাকের কারবালা প্রান্তরে ফোরাত নদীর তীরে স্বৈরাচার, পাপিষ্ঠ, জালিম ইয়াজিদ ও তার সৈন্য বাহিনীর ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে জান্নাতের যুবকদের সর্দার, মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সঃ) এর প্রাণ-প্রিয় দৌহিত্র, হযরত ফাতেমা সাঃ (আঃ) ও হজরত আলী (আঃ)এর কলিজার টুকরো হযরত ইমাম হোসাইন (আঃ) কারবালা প্রান্তরে ন্যায় প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপোষহীন মনোভাব পোষণ করেন। ইয়াজিদ ও তার দোসররা কুফার পথে কারবালা নামক স্থানে ইমাম হোসাইন (আঃ) এর পরিবারকে এবং তাঁর সঙ্গী সাথীদের সহ ৭২ জনকে অবরোধ করে তাদের কাছ থেকে জোর পূর্বক বাইয়াত নিতে চাইলে ইমাম হোসাইন (আঃ) বাইয়াত দিতে অস্বীকার করেন।

পরিস্কারভাবে জানিয়ে দেন যে ইয়াজিদের মত দুঃশ চরিত্রবান লম্পট,জালিমের হাতে বাইয়াত গ্রহনের কোন প্রশ্নই আসেনা,তখন ইয়াজিদ বাহিনী ইমামের কাফেলাকে অবরুদ্ধ করে রাখে এবং খাদ্য ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। এভাবে ৮ দিন অবরুদ্ধ রাখার পর ইমামের পরিবারের শিশুদেরকে সহ যুবকদেরকে ও ইমাম হোসাইন (আঃ)কে ক্ষুধা ও তৃষ্ণার্ত অবস্থায় নির্মম ভাবে হত্যা করে। এ ঘটনাটি স্মরণকে কেন্দ্র করে প্রতি বছর আশুরার চল্লিশ দিন পর পবিত্র চেহলাম অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। অদ্য ২৭শে সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং ১৯ শে সফর ১৪৪৩ হিজরী রোজ সোমবার বাদ যোহর নড়াইল সদর উপজেলার উজিরপুর গ্রামে মসজিদ আল আবুতালিব সংলগ্ন কেন্দ্রীয় ইমাম বাড়িতে এক শোক মজলিসের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মাওলানা সৈয়দ রেজা আলী যাইদী জনাব মাওলানা মোঃ আলী মোর্তজা, জনাব মোঃ আলীরেজা,জনাব মোঃ আজগর আলী, জনাব মোঃ মনজুরুল ইসলাম,জনাব মাওলানা মোঃ ইয়ানুর হোসেন প্রমুখ।

আলোচকবৃন্দ ইয়াজিদ ও তার দোসরদের এহেন জঘন্য কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন এবং ইমাম হোসাইন (আঃ) এর পবিত্র জীবন আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে সঠিক ইসলাম ধর্মের আলোকে জীবন যাপন করতে আগ্রহী হতে উৎসাহিত করেন।্যাল জার্নালিষ্ট ফাউন্ডেশন(আরজেএফ) নড়াইল জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মোঃ সাজ্জাদ আলম খাঁন সজল ভাইয়ের তথ্যচিত্র ইসধর্মের বিশেষ একটি গুরুত্বপূর্ণ দিনকে স্মরন করে তথ্যটি প্রকাশ করেছেন। ৬১হিজরী সনের ১০ই মহররম ইরাকের কারবালা প্রান্তরে ফোরাত নদীর তীরে স্বৈরাচার, পাপিষ্ঠ, জালিম ইয়াজিদ ও তার সৈন্য বাহিনীর ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে জান্নাতের যুবকদের সর্দার, মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সঃ) এর প্রাণ-প্রিয় দৌহিত্র, হযরত ফাতেমা সাঃ (আঃ) ও হজরত আলী (আঃ)এর কলিজার টুকরো হযরত ইমাম হোসাইন (আঃ) কারবালা প্রান্তরে ন্যায় প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপোষহীন মনোভাব পোষণ করেন। ইয়াজিদ ও তার দোসররা কুফার পথে কারবালা নামক স্থানে ইমাম হোসাইন (আঃ) এর পরিবারকে এবং তাঁর সঙ্গী সাথীদের সহ ৭২ জনকে অবরোধ করে তাদের কাছ থেকে জোর পূর্বক বাইয়াত নিতে চাইলে ইমাম হোসাইন (আঃ) বাইয়াত দিতে অস্বীকার করেন।

পরিস্কারভাবে জানিয়ে দেন যে ইয়াজিদের মত দুঃশ চরিত্রবান লম্পট,জালিমের হাতে বাইয়াত গ্রহনের কোন প্রশ্নই আসেনা,তখন ইয়াজিদ বাহিনী ইমামের কাফেলাকে অবরুদ্ধ করে রাখে এবং খাদ্য ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। এভাবে ৮ দিন অবরুদ্ধ রাখার পর ইমামের পরিবারের শিশুদেরকে সহ যুবকদেরকে ও ইমাম হোসাইন (আঃ)কে ক্ষুধা ও তৃষ্ণার্ত অবস্থায় নির্মম ভাবে হত্যা করে। এ ঘটনাটি স্মরণকে কেন্দ্র করে প্রতি বছর আশুরার চল্লিশ দিন পর পবিত্র চেহলাম অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। অদ্য ২৭শে সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং ১৯ শে সফর ১৪৪৩ হিজরী রোজ সোমবার বাদ যোহর নড়াইল সদর উপজেলার উজিরপুর গ্রামে মসজিদ আল আবুতালিব সংলগ্ন কেন্দ্রীয় ইমাম বাড়িতে এক শোক মজলিসের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মাওলানা সৈয়দ রেজা আলী যাইদী জনাব মাওলানা মোঃ আলী মোর্তজা, জনাব মোঃ আলীরেজা,জনাব মোঃ আজগর আলী, জনাব মোঃ মনজুরুল ইসলাম,জনাব মাওলানা মোঃ ইয়ানুর হোসেন প্রমুখ। আলোচকবৃন্দ ইয়াজিদ ও তার দোসরদের এহেন জঘন্য কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন এবং ইমাম হোসাইন (আঃ) এর পবিত্র জীবন আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে সঠিক ইসলাম ধর্মের আলোকে জীবন যাপন করতে আগ্রহী হতে উৎসাহিত করেন।