অবশেষে ইতিহাসের সর্ববৃহৎ যাত্রীবাহী বিমান এ-৩৮০ সুপারজাম্বো যুগের সমাপ্তি টানলো উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এয়ারবাস। সংযুক্ত আরব আমিরাতের পতাকাবাহী এমরিটসের বহরে যোগ হওয়া ১২৩তম এ-৩৮০ সুপারজাম্বোটিই এয়ারবাসের নির্মিত সর্বশেষ ‘ডাবল-ডেকার এয়ারলাইনার’। বোয়িং ৭৪৭-এর সঙ্গে টক্কর দেওয়ার লক্ষ্য নিয়েই উড়োজাহাজটির নকশা করেছিল এয়ারবাস।

তিন শ্রেণি বিন্যাসে দুই ডেকে সব মিলিয়ে সাড়ে পাঁচশ যাত্রী বহনে সক্ষম ছিল উড়োজাহাজটি। বিশ্ববাজারে এয়ারবাস এ-৩৮০ সুপারজাম্বোর সবচেয়ে বড় ক্রেতা ছিল এমিরেটস। প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট বলছে, বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা আলাদা গুরুত্ব পেলেও এয়ারলাইনার হিসেবে জীবনকাল বেশ ছোটই ছিল এ-৩৮০’র।

বোয়িং-৭৪৭ উড়োজাহাজগুলো তৈরি এবং বিক্রি চলেছে পাঁচ দশকের বেশি সময় যাবত। সেই তুলনায় মাত্র ১৫ বছর এই মডেলের উড়োজাহাজগুলো বানিয়েছে এয়ারবাস।

সব মিলিয়ে ২৫১টি এ-৩৮০ তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিটি এ-৩৮০ নির্মাণে খরচ ছিল প্রায় ৫০ কোটি ডলার করে। ব্যবস্থাপনা খরচ বেশি হওয়ায় বেশিরভাগ এয়ারলাইন শেষ পর্যন্ত বেছে নিয়েছে বোয়িং-৭৭৭ বা এয়ারবাস ৩৫০-এর মতো তুলনামূলক ছোট দুই ইঞ্জিনের উড়োজাহাজ।