মোঃ ছিদ্দিক ভোলা প্রতিনিধি: গ্যাস সিলিন্ডার ছিদ্রের সংকেত যন্ত্র উদ্ভাবন করে এবার জাতীয় পুরস্কার পাচ্ছে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার খুদে বিজ্ঞানী মাহির আশহাব লাবিব। সে উপজেলার কুতুবা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। তাঁর বাবা এএইচএম মোস্তফা কামাল বোরহানউদ্দিন উপজেলার আব্দুল জব্বার কলেজের প্রভাষক। মা ইয়াছমিন একজন গৃহিণী।

লাবিবের বাবা মোস্তফা কামাল বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন এলাকায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দুর্ঘটনায় হতাহতের খবরে বিহ্বল হয়ে পড়ে লাবিব। এরপর সে উদ্ভাবন করেছে স্মার্ট গ্যাস লিকেজ ডিটেক্টর ডিভাইস। এটি ব্যবহারে যেকোনো বদ্ধ জায়গায় গ্যাস সিলিন্ডার কিংবা গ্যাস পাইপ ছিদ্র হলে সেটা শনাক্ত করে আগেই বিপৎসংকেত দেবে। সাইরেন বাজিয়ে সতর্ক করে দেবে। জ্বলবে লাল বাতি। ডিসপ্লেতেও প্রদর্শিত হবে। বিদ্যুৎ ও ব্যাটারি দিয়ে চালানো যাবে এই ডিভাইস। যন্ত্রটি তৈরি করতে তার সময় লেগেছে প্রায় এক মাস। ২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর শুরু করার পর ওই বছরের ২৯ নভেম্বর যন্ত্রটির উদ্ভাবন শেষ করেছে। এতে খরচ হয়েছে ৯৪৪ টাকা। সে স্মার্ট গ্যাস লিকেজ ডিটেক্টর ডিভাইস উদ্ভাবন করে ইতিমধ্যেই এলাকায় বেশ সাড়া জাগিয়েছে।’

মোস্তফা কামাল বলেন, ‘লাবিবের এই ডিভাইসটি ডিজিটাল বাংলাদেশ-২০২১ সাধারণ-বেসরকারি (শ্রেষ্ঠ ব্যক্তি) ক্যাটাগরিতে জাতীয় পর্যায়ে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হয়েছে। আজ রোববার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উদ্বোধন ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তাকে পুরস্কৃত করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হবেন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন।’

১৬ বছর বয়সী শিক্ষার্থী মাহির আশহাব লাবিব জানায়, ছোটবেলা থেকেই তার বিজ্ঞানের প্রতি আগ্রহ। সে যখন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র তখন বিজ্ঞান মেলায় ‘বাতাসের গতি পরিবর্তন’ বিষয়ে আন্তঃস্কুল প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে। এরপর থেকেই শুরু হয় বিজ্ঞান নিয়ে তার নানা চিন্তা-ভাবনা। একের পর এক করছে দারুণ দারুণ সব গুরুত্বপূর্ণ উদ্ভাবন। লাবিব বলে, ‘গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে রক্ষায় আমার তৈরি স্মার্ট গ্যাস লিকেজ ডিটেক্টর ডিভাইসটি বাজারজাত করার ইচ্ছা রয়েছে।’