বিপিএলে কোচিং করাতে এসে বাংলাদেশ জাতীয় দলের বোলিং কোচের দায়িত্ব পেয়েছিলেন ওটিস গিবসন। এবার তার পথে হেঁটেই তার শূন্য করে যাওয়া পদে নিজেকে দেখাতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন শন টেইট।

বিপিএলে বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করতে এসে সাবেক এই অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার চোখ রাখছেন বাংলাদেশের বোলিং কোচের দায়িত্বেও।

বিপিএলে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে কাজ করতে এসে তিনি মুখিয়ে বিসিবির লোভনীয় চাকরির দিকে।

অস্ট্রোলিয়ার খেলোয়াড়ি জীবনে গতির জন্য বিশ্বজুড়ে বেশ পরিচিত ছিলেন টেইট। একশ মাইল গতিতে বল করতে পারা ইতিহাসের তিন পেসারের একজন তিনি। ২০০৫ সালে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু হলেও তা খুব বেশি সমৃদ্ধ হয়নি। ২০১৬ সালে খেলা ছেড়ে দেওয়ার পর কোচিংয়ের দিকে মন দেন এই গতির বোলার।

সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের পেস বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। এবার বিপিএলে এসেছে চট্টগ্রামের হয়ে কাজ করতে। বাংলাদেশে দুদিন অনুশীলনের পর গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপে টেইট সোজাসাপ্টা জানিয়ে দেন নিজের আগ্রহ, ‘অবশ্যই আমি আগ্রহী পেস বোলিং কোচ হতে। তাদের হাতে অবশ্য সময় আছে, কাকে বেছে নেবে। তবে অবশ্যই আমার জন্য দারুণ হবে যদি দায়িত্ব পাই।

চট্টগ্রাম দলে টেইট কাজ করার জন্য পাচ্ছেন বেশ কয়েকজন তরুণ পেসার। আছেন শরিফুল ইসলাম, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, রেজাউর রহমান রাজারা। তরুণ এই পেসারদের দেখে বাংলাদেশের আগামী নিয়ে রোমাঞ্চিত তিনি। বলেন, এমনিতেও বাংলাদেশের ক্রিকেটে তরুণ ফাস্ট বোলার ও ক্রিকেটার উঠে আসছে। আগামী ৫-৬ বছর বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য হতে যাচ্ছে রোমাঞ্চকর।

 কলমকথা/রোজ