মাহমুদউল্লাহ আর টেস্ট ক্রিকেট খেলবেন না, গত জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ে সফরে হারারে টেস্টের মাঝখানেই এই সিদ্ধান্ত তিনি সতীর্থদের জানিয়ে দিয়েছিলেন।

মাহমুদউল্লাহর সেই সিদ্ধান্ত বেশ তোলপাড়ই সৃষ্টি করেছিল। বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা না করে মাহমুদউল্লাহর এমন সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছিলেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন।

টেস্টের মাঝপথে একাদশে থাকা একজন খেলোয়াড়ের ড্রেসিংরুমে অবসরের ঘোষণা কতটা ক্রিকেটীয়, প্রশ্ন উঠেছিল তা নিয়েও। তবে হারারে টেস্টের পর মাহমুদউল্লাহ এ নিয়ে আর কোনো কথাই বলেননি। যখনই তার কাছে টেস্ট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত জানতে চাওয়া হয়েছে, তিনি সে প্রসঙ্গ এড়িয়ে গেছেন। অবশেষে তার আনুষ্ঠানিক ঘোষণাটি এল।

বুধবার জানা গেল, মাহমুদউল্লাহ হারারেতে তার শেষ টেস্টটি খেলে ফেলেছেন। মাহমুদউল্লাহ টেস্টকে বিদায় বলার দিন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তার ভাষায়, বেশ কিছু দিন দলের বাইরে থাকার পর আমি যখন টেস্ট দলে ফিরি, তখন তিনিই আমাকে সমর্থন দিয়েছেন।